Ad

 Dark web and Deep web: আমরা স্বাভাবিকভাবে যে ইন্টারনেট ব্যবহার করি সেটা একটা সাধারন ওয়েব সার্ভার থেকে তৈরি। সেই ইন্টারনেট পৃথিবির সবার জন্য। যে কেও চাইলে সেই ইন্টরনেট স্বাভাবিকভাবে ব্যবহার করতে পারবে। কিন্তু ইন্টারনেটে কিছু এমন স্থান বা জায়গা রয়েছে সেখানে সকলে ভিজিট করতে পারে না। আপনি চাইলেও স্বাভাবিকভাবে সেখানে ঘুরতে পারবেন না। সেটা একটি নিশিদ্ধ বা অন্ধকার জগৎ। সেখানে সুধু তারাই ডুকতে পারবে যারা এর সঠিকভাবে ঢোকার নিয়ম জানে। সেখানে এমন এমন কিছু কাজ করা হয় যা জানলে আপনার ঘাম ছুটে যাবে। তো বেশি বক বক না করি, এখন চলুন জেনে নেই এই নিশিদ্ধ জগত সম্পর্কে যা ডার্ক ওয়েব নামে পরিচিতো।



ডীপ ওয়েব কি - what's Deep web

Deep web: ডীপ ওয়েব হলো World Wide Web এর বিশাল অদৃশ্য একটি অংশ। তাই এটি্কে লুকানো ওয়েব হিসাবেও বলা হয়। ডীপ ওয়েবের ওয়েব সাইট গুগলের মত সাধারণ সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে পাওয়া যায় না। ডীপ ওয়েবটি সারফেস ওয়েবের বিপরীতে, কারণ এটি জনসাধারণের বা আপনার আমার অ্যাক্সেস যোগ্য নয়। ডীপ ওয়েব সাধারণত Banking, Cloud , সরকারী তথ্য, Web-mail বা অন্যান্য পেমেন্ট পরিষেবা এর জন্য ব্যবহার করে। Deep web বা লুকানো ওয়েব HTTPS বা HTTP প্রোটোকলের পিছনে লুকানো। ডীপ ওয়েব প্রবেশ করতে আইপি ঠিকানা বা সরাসরি URL প্রয়োজন, কিছু ক্ষেত্রে পাসওয়ার্ড বা অন্যান্য সিকিউরিটি থাকতে পারে।

ডার্ক ওয়েব - Dark web

Dark web: ডার্ক ওয়েব ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের একটি আবিচ্ছেদ্য অংশ এবং এটি সারফেস ওয়েবে অদৃশ্য থাকে। ভিজিটর বা ওয়েবসাইট এডমিনদের এই ডার্ক ওয়েব অ্যাক্সেসের জন্য আলাদা সফটওয়্যার বা কনফিগারেশনের প্রয়োজন। টর ব্রাউজার ডার্ক ওয়েব অ্যাক্সেস করার জনপ্রিয় সফটওয়্যার। টর ব্রাউজারের মাধ্যমে এসব ওয়েব ওয়েবসাইট অ্যাক্সেস করা যায়। Dark web এর ওয়েবসাইটের ডোমেইন সাধারণত .onion থাকে।

Dark web এ অবৈধ কার্যকলাপ, জুয়া, ড্রাগ, অস্ত্রসহ সব ধরনের খারাপ কার্যক্রম সর্বক্ষণ হয়ে থাকে। Bitcoin এর মত Cryptocurrency ব্যবহার করে লেনদেনের সংঘটিত হয়।বেশিরভাগ হ্যাকার ডীপ ওয়েব এবং ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। মোট ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের ৯৫% ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে।

সারফেস ওয়েব - Surface web

Surface web: সারফেস ওয়েব ইন্টারনেটের একমাত্র দৃশ্যমান অংশ। সারফেস ওয়েবের ওয়েবসাইট সাধারণ সার্চ ইঞ্জিনেই খুঁজে পাওয়া যায়। আমরা স্বাভাবিক ভাবে যে ওয়েবসাইট ব্যবহার করছি তাই সারফেস ওয়েব। যেমন গুগুলে আমরা কোন প্রকার কিছু সার্চ দিলে যে সকল ওয়েবসাইট আসে তাই সারফেস ওয়েব। Surface web ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের একটি ছোট অংশ এবং এটি জনসাধারণের জন্য একমাত্র অ্যাক্সেস যোগ্য অংশ। গুগল, ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার ইত্যাদি ওয়েবসাইট সাধারণ সারফেস ওয়েবের অন্তর্ভুক্ত। এসব ওয়েবসাইটে অ্যাক্সেস বা প্রবেশ করতে, কোন বিশেষ কনফিগারেশন প্রয়োজন নেই। সারফেস ওয়েব World Wide Web এর মাত্র ৫%।

পরের পোষ্ট এ আমরা জানবো কীভাবে ডার্ক ওয়েব ফ্রিতে ব্যাবহার করা যায়।

Post a Comment

Previous Post Next Post